দৌড় ও পাবলিক পরিবহনে আমরা

Mar 30, 2019
16613 Views

বাসস্ট্যান্ড মানে যেখানে বাস থামে, যাত্রী নামে এবং যাত্রী উঠে এরূপ স্থান কে বাসস্ট্যান্ড বলে। ইহা পুস্তক ভাষ্য, যার সাথে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে কোন মিল নেই।

আমরা যারা ঢাকা শহরে বসবাস করি তারা ভালো করেই জানি, বাসে কি ভাবে উঠতে হয়। কি ভাবছেন এখানে কি বলতে চাচ্ছি? বাসে কেমন করে উঠতে, হয় তা বলতে আসছি, আরে নাহ রে ভাই। আমি ভাবছি, আমরা যেমন করে বাসের পেছনে দৌড়ায় উঠি, আমাদের এই প্রতিভা কে আর কই কই কাজে লাগানো যায়।

এই ধরেন, ১০০ মিটার দৌড় প্রতিযোগিতায়। আমি নিশ্চিত, আমাদের একটু অনুশীলন করিয়ে অলিম্পিকে পাঠালে সোনা মিস হলেও রূপাকে মিস করব না।

পাবলিক ট্রান্সপোর্ট এর সাথে জড়িত বাসের চালক এবং তার সহযোগীদের শিক্ষার দৌড় বেশি দূর না হেলেও আমাদের মত শিক্ষিত থুক্কু উচ্চ শিক্ষিতদের দৌড়াত্ব তারা ভালো করেই জানে। এই জন্যই আমাদের দৌড়ায় নিয়ে বাসে উঠায়। তারাও আমাদের নিয়ে স্বপ্ন দেখে…

আমি আসলে তাদের দেশ প্রেম দেখে শিহরিত, আমাদের মাধ্যমে দেশ সোনা জিতবে এই স্বপ্ন মেট্রো সিটির প্রতিটি বাস চালক এবং তার সহযোগী দেখে। আর এই জন্যই আমাদের জন্য দিনে অন্তত দুইবার অনুশীলনের ব্যবস্থা করে। আমরা উচ্চ শিক্ষিতরা কি তাদের মত মানুষদের স্বপ্ন পূরণ করতে পারি না?

আসুন আমরা প্রতিজ্ঞা করি, আমরা কোন দিন বাস স্ট্যান্ড ব্যবহার করে বাসে উঠব না, নামবোও না। যত্রতত্র ভাবে বাসে উঠব, যেখানে সেখানে বাস থেকে নামব। দৌড়ায় বাসে উঠার অনুশীলন নিয়মিত করব।

বিঃদ্রঃ বলিয়েন না, বাস স্ট্যান্ড নাই, স্ট্যান্ডে বাস দাঁড়ায় না। বেশি দিন নয় এই তো চিটিং সার্ভিস চালু হবার পর কাউন্টার গুলোতেই বাস দাঁড়াত কিন্তু আমরাও সোনার লোভ ছাড়তে পারি না।
প্রতিজ্ঞা করুন, সোনা আমাদের অর্জন করতেই হবে।

Author
Md Rakib Hossain

Md Rakib Hossain

Md. Rakib Hossain

  • leave a comment

    Your email address will not be published. Required fields are marked *