ফুটানি বাবু

May 29, 2018
138 Views

ফুটানি বাবু!

বাথরুম থেকে বেরিয়ে নিজের অফিসের কেবিনে এক অপরিচিত যুবক কে বসে থাকতে দেখে অবাক হলেন রায়ান গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রির হেড অফ এইচ. আর. জনাব এম এ খোরশেদ। এই সময় বিনা নোটিশে তার কাছে কারু আসার কথানা। তিনি ভ্রু কুঁচকে জিজ্ঞেস করলেন “আপনি?”।
যুবক নির্বিকার, টেবিলে রাখা ছোট ছবির ফ্রেম টার দিকে তাকিয়ে সে মিটিমিটি হাসছে। খোরশেদ সাহেব এবং তার মেয়ে নবনীর ছবি, ছবির নিচে একপাশে ছোট্ট করে লেখা ” আমার আদর্শ,আমার বাবা। নবনী। “
খোরশেদ সাহেব এবার বিরক্ত হলেন, তিনি উচ্চ স্বরে তার বেল বয়কে ডাকলেন ” মতিউর! মতিউর !”।
কোন সাড়া শব্দ আসলো না। তবে যুবকটি এবার নড়েচড়ে বসলো।
তিনি আবার প্রশ্ন করলেন,” তুমি কে? কি চাই ? “ এবার তিনি ‘আপনি’ থেকে ‘তুমি’তে চলে আসলেন।
যুবকের মুখে রহস্যময় হাসি, ” স্যার, আমার নাম ফুটানি বাবু, ঘুষ খাওয়া আমার পেশা, মিথ্যা বলা আমার নেশা…”
খোরশেদ সাহেবের মুখ রীতিমতো হা হয়ে গেলো, বলেকি এই ব্যাটা ! পাগল আসলো কোথা থেকে! তিনি রীতিমতো চিৎকার করে আবার মতিউর কে ডাকলেন, মতিউর এবার সাড়া দিলো এবং হুড়মুড় করে রুমে ঢুকলো। খোরশেদ সাহেব যখনি যুবকটিকে ইঙ্গিত করে কিছু বলতে যাবেন তখনি দেখলেন চেয়ার এ কেউ নেই। তিনি ভয়ঙ্কর ভাবে চমকে গেলেও নিজেকে সামলে নিলেন দ্রুত।
” মতিউর…কেউ এসেছিলো আমার কাছে ?”
” জী না স্যার।” ভীত হয়ে জবাব দিলো মতিউর, স্যার কে কেমন অচেনা লাগছে তার কাছে।
” ঠিক আছে যাও। “ তিনি তার বেল বয়কে কে কিছু বুঝতে দিলেন না। হয়তো বা তার হেলুসিনেশন হয়েছে।

সন্ধ্যায় বাসায় ফিরছেন খোরশেদ সাহেব। সকালের ব্যাপারটা নিয়ে তার মনে ঝড় বইছে। জানালার কাঁচটা পুরোটা নামিয়ে দিলেন। কেমন দম বন্ধ হয়ে আসছে।
”মনিরুল, একটা ঠাণ্ডা গান প্লে করো শুনি…” বলতে বলতে প্রায় চোখ বন্ধ হয়ে আসছিলো তার, ঠিক তখনি গাড়ির সামনের আয়নায় চোখ গেলো, মনে কেমন খকটা লাগলো, ঘাড় সামনে নিয়ে তিনি ড্রাইভারকে দেখার চেষ্টা করলেন, আর সাথে সাথে তার শরীর হিম হয়ে এলো। ড্রাইভিং সিট এ আজকের সকালের সেই যুবকটি বসা।
তিনি চিৎকার করে উঠলেন,” তুমি কে!? মনিরুল কোথায় …! মনিরুল…”? বলেই জ্ঞান হারালেন। জ্ঞান ফেরার পর নিজেকে তার বাসায় আবিষ্কার করলেন এবং জানতে পারলেন মনিরুল-ই তাকে বাসায় নিয়ে এসেছে।

এরকম চলতেই থাকলো, পথে ঘাটে, বাসায় অফিসে খোরশেদ সাহেব সেই যুবকটিকে দেখতে লাগলেন। একসময় তার মনে হতে লাগলো তিনি পাগল হয়ে যাচ্ছেন।

একটা দুঃস্বপ্ন দেখে ঘুম ভেঙ্গে গেলো খোরশেদ সাহেবের। দেখলেন একজন অন্ধ লোক তার মাথার উপর ইট রেখে তা ভাঙ্গার চেষ্টা করছে। আর দূর থেকে কেউ একজন একদমে বলেই যাচ্ছে…” স্যার, আমার নাম ফুটানি বাবু, ঘুষ খাওয়া আমার পেশা, মিথ্যা বলা আমার নেশা… স্যার…!!” কেউ একজন আবার হাত তালি দিচ্ছে। বৃদ্ধ লোকটি এবার ইট ফেলে দিয়ে খোরশেদ সাহেবের মাথাতেই হাতুরি ঠুকতে থাকে।

ডগডগ করে পানি পান করলেন তিনি। মাথার মধ্যে কেমন ব্যাথা অনুভব হচ্ছে, যেন সত্যি কেউ হাতুড়ি ঠুকেছে। তার হচ্ছেটা কি ! তিনি কি মানসিক রোগে আক্রান্ত হয়েছেন? !

ঘটনা যখন সহ্যের সীমা অতিক্রম করলো খোরশেদ সাহেব ঠিক করলেন তার মেয়েকে একটা চিঠি লিখবেন। তার মেয়ে তাকে আদর্শ মনে করে। তার উচিৎ তার মেয়েকে এই চিঠিটা লেখা। এবং তিনি লিখেও ফেললেন।

“ মা নবনী, আজ থেকে প্রায় দেড় বছর আগের কথা, হাসিবুল হাসান নামের এক যুবক আমার অফিস এ আসে ইন্টার্ভিউ দেয়ার জন্য, তার বাবা ইট ভেঙ্গে তাকে পড়ালেখা শেখায়। ঘরে অসুস্থ মা এবং ছোট ভাই। মেধাবী ছাত্র সে। সবদিক বিবেচনা করে তাকেই আমাদের যোগ্যতা সম্পন্ন মনে হয় এবং চাকরি টা সে পাবে সেরকম ইঙ্গিত ও তাকে দেয়া হয়। তবে সমস্ত রকমের যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও তার চাকরিটা আমি দেইনি। কারন… লোভ! মোটা অংকের টাকা নিয়ে আরেকজনকে চাকরিটা পাইয়ে দিলাম। হাসান কে কথা দেয়া সত্ত্বেও আমি বেঈমানি করি। তার পর যা হয় তা আমার স্বপ্নে দেখা। তুমি হয়তো বিশ্বাস করবেনা। আমি এখন জানি, হাসানের বাবা একদিন কর্ম করে খাওয়ার ক্ষমতা হারায়। হাসানের মা বিনা চিকিৎসায় মারা যায়। হাসানের ভাই অনাহারে ঘুরে বেড়ায়। এদিক ওদিক ঘুরেও যখন হাসানের কোন কুল কিনারা হলো না তখন সে অন্ধকার জগৎ এ পা বাড়ায়। আমার জন্য আরও একটি ছেলে নষ্ট হোল। আরও একটি পরিবার ধংস হোল। একসময় অন্ধকার জগৎ এর ছোবলে প্রান হারায় হাসান।
আমি অনুতপ্ত কিনা বুঝতে পারছিনা। হাসানের অতৃপ্ত আত্মা চাইছে আমি তোমাকে এই চিঠিটা লিখি,তাই লিখছি।
ইতি বাবা “

তারপর থেকে প্রায়-ই কোট প্যান্ট পরিহিত মধ্যবয়স্ক একজনকে দেখা যায় উদ্ভ্রান্তের মতো এদিক থেকে ওদিক ছুটছে আর চিৎকার করে বলছে …” স্যার, আমার নাম ফুটানি বাবু। ঘুষ খাওয়া আমার পেশা.. মিথ্যা বলা আমার নেশা… ।“

(সমাপ্ত)

গল্পটির কিছু কিছু অংশ কাল্পনিক হলেও মূল বক্তব্য কিন্তু একদম-ই সত্য। খোরশেদ সাহেবদের মতো মানুষেরা আমাদের চারপাশেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। গ্রাস করে নিচ্ছে লাখো হাসানদের মূল্যবান জীবন। ধ্বংস করছে তাদের স্বপ্ন। লালসার গণ্ডিতে টাকার ঝংকার ছাড়িয়ে হাসানদের আর্তনাদ এদের কর্ণপাত হয় না।

মূল লেখাঃ তানিয়া সুলতানা (রোম,ইটালি)

Author
Bangladesh Information

Bangladesh Information

"Bangladesh Information" is working on the goal of promoting Bangladesh in the world. Let's fulfill Bangladesh Information's goal, you can also raise the country with the help of the Bangladesh Information.

  • leave a comment

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    * Copy This Password *

    * Type Or Paste Password Here *